বগুড়ায় করোনা আর বন্যায় থেমে নেই আ”লীগের প্রচারনা, মাঠে নেই বিএনপি

 

অনলাইন ডেস্ক ঃঃকরোনার সংক্রমণ ও মৃত্যুর দিক থেকে রাজশাহী বিভাগে শীর্ষে থাকা বগুড়া শহরের রেড জোন ঘোষিত এলাকায় সপ্তাহ দুই ধরে চলছে লকডাউন। জেলায় করোনা শনাক্ত রোগী ৩ হাজার ৩০০ ছাড়িয়েছে। কোভিডে সরকারি হিসাবেই মৃত্যু ৬১ জন। করোনার সংক্রমণ–ঝুঁকির সঙ্গে বন্যায় জেলার তিন উপজেলার ৯৭টি গ্রামের হাজারো মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে। করোনার ঝুঁকি আর বন্যার এই দুর্ভোগের মধ্যেই চলছে বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা) শূন্য আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রচারণা। নির্বাচন কমিশন ১৪ জুলাই ভোট গ্রহণের সিদ্ধান্ত জানানোর পরপরই আজ রোববার থেকে নৌকায় ভোট চেয়ে প্রচারণায় মাঠে নেমেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী সাহাদারা মান্নান ও তাঁর সমর্থকেরা। তবে মাঠে নেই বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আহসানুল তৈয়ব জাকির। তিনি বলেন, করোনা মহামারি আর বন্যার দুর্ভোগে মানুষের মধ্যে ভোটের নামে প্রহসনের আরেকটি নাটক মঞ্চায়নের প্রস্তুতি চলছে। নির্বাচনী এলাকার অর্ধলক্ষাধিক মানুষ বন্যায় চরম দুর্ভোগে দিন কাটাচ্ছে। দুর্গত এলাকায় ত্রাণ নেই, আশ্রয়হীন মানুষ খোলা আকাশের নিচে দিন কাটাচ্ছে। দুই উপজেলায় দেড় শতাধিক মানুষ করোনায় সংক্রমিত। করোনা ও বন্যায় বেঁচে থাকাই কঠিন হয়ে পড়েছে। আহসানুল তৈয়ব আরও বলেন, ‘দুই উপজেলার ৯ ইউনিয়নের ৭০-৮০টি গ্রামের ৬০ থেকে ৭০ হাজার মানুষ পানিবন্দী। অনেক ভোটকেন্দ্র জলমগ্ন রয়েছে। এ রকম একটি অবস্থার মধ্যে মানুষের কাছে ভোট চাইতে যাওয়া বিব্রতকর। তবু দলীয় সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছি। দল থেকে নির্বাচনে অংশগ্রহণের ব্যাপারে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। দলীয় সিদ্ধান্ত জানার পরপরই প্রচারে মাঠে নামব।’ সারিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রাসেল মিয়া জানান, তাঁর উপজেলায় আটটি ইউনিয়নের বন্যায় প্লাবিত ৬৮টি গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী। বিশেষ করে চালুয়াবাড়ি ইউনিয়নের অধিকাংশ চর এখন যমুনার ঢলে প্লাবিত। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে আরও এক দফা বন্যা পরিস্থিতির আভাস দিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.