সাহেদ ব্যাংকের টাকা আত্মসাতের সাথে জড়িত ছিল

অনলাইন ডেস্ক ঃঃ

পদ্মা ব্যাংকের (সাবেক ফারমার্স ব্যাংক) এক কোটি টাকা ঋণ আত্মসাতের অভিযোগে একটি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক), যাতে ব্যাংকটির সাবেক অডিট কমিটির চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক চিশতী ওরফে বাবুল চিশতী সঙ্গে আলোচিত প্রতারক রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদকে আসামি করা হয়েছে। দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শাহজাহান মিরাজ বাদী হয়ে ২৬ জুলাই রোববার রাতে ঢাকার এক নম্বর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে মোট চারজনের বিরুদ্ধে এ মামলা করেন।

সংস্থাটির মুখপাত্র প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য জানান, বাবুল চিশতীর ছেলে রাশেদুল হক চিশতী ও রিজেন্ট হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. ইব্রাহিম খলিলকেও আসামি করা হয়েছে। অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেন, ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে অসৎ উদ্দেশ্যে, ক্ষমতার অপব্যবহার করে পদ্মা ব্যাংকের গুলশান করপোরেট শাখা থেকে এক কোটি টাকা ঋণ (যা সুদ আসলসহ দুই কোটি ৭১ লাখ টাকা) নিয়ে আত্মসাৎ করেন। আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪০৯/১০৯ ধারা, ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারা এবং অর্থ পাচার প্রতিরোধ আইন- ২০১২ এর ৪ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে। এর আগে গত ২২ জুলাই এনআরবি ব্যাংকের এক কোটি ৫১ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মোহাম্মদ সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমসহ চারজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করে দুদক। আগের দিন ২১ জুলাই পদ্মা ব্যাংকের প্রায় ৬৩ কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের অভিযোগে বাবুল চিশতীসহ ছয়জনকে আসামি করে মামলা করেছে কমিশন। অবৈধ সুবিধা নিয়ে ভুয়া দলিলপত্রের মাধ্যমে নামে-বেনামে ঋণ বিতরণসহ অন্যান্য মাধ্যমে পদ্মা ব্যাংকের শত কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বাবুল চিশতীর বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত ৮টি মামলা করেছে দুদক।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.