দক্ষিণ চীন সাগর নিয়ে চীনের দাবি বেআইনি : যুক্তরাষ্ট্র

অনলাইন ডেস্ক ঃঃ

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, চীন দক্ষিণ চীন সাগরের যতটুকু তার নিজের বলে দাবি করে তার অধিকাংশ তার নয়। চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের আরো বেশ কিছু বিষয় নিয়ে চলমান উত্তেজনার মাঝেই সোমবার এ কথা বলেন তিনি। খবর সিএনএনের।

তিনি বলেন, দক্ষিণ চীন সাগরের যে অংশ নিজের বলে দাবি করে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তা সম্পূর্ণ বেআইনি। এ অংশের নিয়ন্ত্রণ নিতে চীন একই কথা বলে চলেছে। যুক্তরাষ্ট্র এ ব্যপারে তার নীতি আরো কঠোর করবে বলেও জানান তিনি। পম্পেও বলেন, বিশ্ব দক্ষিণ চীন সাগরকে চীনের সাম্রাজ্য হিসেবে ব্যবহার হতে দেবে না। আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী সমূদ্র সম্পদে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ায় তার মিত্রদেশগুলোর সার্বভৌম অধিকার রক্ষায় তাদের পাশে থাকবে যুক্তরাষ্ট্র।

চীন দক্ষিণ চীন সাগরে ১৩ লাখ বর্গমাইল নিজের বলে দাবি করে। এবং গত কয়েক বছরে এখানে বেশ কিছু দ্বীপে তারা ঘাটি স্থাপন করেছে। তবে এই সমুদ্রসীমায় সুনির্দিষ্ট জায়গা ও দ্বীপের ওপর দাবি রয়েছে ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ব্রুনেই এবং তাইওয়ানের। চীন এই সমুদ্রসীমা কয়েকশ বছর ধরে নিজের দাবি করে ওই দেশগুলোর ওপর সেখানে মাছ শিকারসহ বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। পম্পেও’র এই ঘোষণার পর এ বিষয়ে কঠোর প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে ওয়াশিংটনে চীনের দূতাবাস। যুক্তরাষ্ট্রের এই বক্তব্য পুরোপুরি বেঠিক বলেছে চীন।

চীনা দূতাবাসের দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র তথ্য ও আন্তর্জাতিক আইনের বিকৃত ব্যাখ্যা দিয়েছে। এবং ওই অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে বিবাদ সৃষ্টিতে অতিরঞ্জিত বক্তব্য প্রচার করছে। চীনের মতে, এই প্রশ্নে যুক্তরাষ্ট্র সম্পৃক্ত না হওয়া সত্ত্বেও তারা এই অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে উত্তেজনা ছড়ানো ও তাদের মুখোমুখি করার পাঁয়তারা করছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.