মানিকগঞ্জে জমি নিয়ে দুই পক্ষের সংর্ঘষ : আহত-৩

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি ঃঃ

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার বেতিলা-মিতরা ইউনিয়নের রামদিয়া গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধে হামলার ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর দুপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন ওই গ্রামের চিনু মল্লিকের ছেলে রজ্জব আলী, ইদ্রিস আলী ও তার স্ত্রী হাজেরা বেগম। গুরুতর আহত ইদ্রিস আলী ও রজ্জব হাসপাতালে ভর্তি আছে।

ইদ্রিস আলীর স্ত্রী হাজেরা বেগম জানান, শুক্রবার বাড়ির ঘরের ভিটি পাকা করার সময় আমার স্বামীর চাচাতো ভাই চানমিয়া, লাল মিয়া, তার ছেলে অসীম বাঁধা দেয়। একপর্যায়ে তারা আমার স্বামীর বড় ভাই রজ্জব আলীর ওপর হামলা চালায়। পরে আমার স্বামী এগিয়ে আসলে তাকেও বেদম মারপিট করে। ফেরাতে গেলে আমি ও আরো কয়েকজন আহত হয়। পরে পরিবারের সদস্যরা আমাদেরকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। তিনি আরো জানান, ওরা মেরে আমার স্বামীর হাত ভেঙ্গে দিয়েছে। আমি একজন নারী তারপরও তারা আমাকে বেদম মারপিট করেছে। আমাদের জায়গায় ঘরের কাজ করছিলাম। তারা এখন আমাদের এখানে জমি পাবে বলে দাবী করছে। অথচ একযুগেরও বেশি সময় আগে আমরা যখন ঘর তুলেছি তখন কিন্তু তারা বাধা দেয়নি। অথচ এখন তারা আমাদের কাছে জমি দাবী করছে।

এদিকে হামলাকারীরা তাদের আরেক চাচাতো ভাই মান্নানের স্ত্রী সুমি অভিযোগ করে বলেন, ওই দুই পরিবারে সাথে জমি নিয়ে ঝামেলা হয়েছে। আমরা এর আগে পরে নাই। তারপরও হামলাকারী লালমিয়া ও চান মিয়ারা আমাদের বাড়ির সামনের পথ আটকে বাড়িঘর ভাঙচুর করে। এখন আমরা বাড়ি থেকে বের হতে পারছিনা। এ ব্যাপারে রজ্জবের স্ত্রী রাশেদের বেগম শুক্রবার রাতেই মানিকগঞ্জ সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এদিকে অভিযুক্ত লালমিয়া জানান, আমার বাড়ির সামনে আমি ৬ শতাংশ জায়গা ক্রয় করেছি। ইদ্রিসরা যেখানে ঘর করেছে সেখানে আমার কিছু জায়গা রয়েছে। তারা যখন ঘরের ভিটি পাকা করছিল তখন আমরা তাদেরকে বাধা দেই। এতে দুই পক্ষের মধ্যে মারপিট হয়। এঘটনায় আমরাও থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। এ ব্যাপারে বেতিলা মিতরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন জানান, ইতিপূর্বে উভয়পক্ষকে নিয়ে আপোষের চেষ্টা করেও কোন সমাধান করা যায়নি।এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আকবর আলী জানান, দুই পক্ষই অভিযোগ দিয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.

শিরোনাম