মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে বাবা শরিফুল ধর্ষণ করল তার কিশোরী কন্যাকে

সংবাদ জমিন ডেস্ক ঃঃ

১৬ বছর বয়সী মেয়েকে আটকে রেখে ধর্ষণ করার অভিযোগে বাবা শরিফুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি।  বুধবার (৭ অক্টোবর) মালিবাগে সিআইডির প্রধান কার্যালয়ে ডিআইজি শেখ নাজমুল আলম সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান। মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) মানিকগঞ্জ থেকে কথিত এই সাধক শরিফুল ইসলামকে গ্রেফতার করে সিআইডি।

ডিআইজি জানান, মানিকগঞ্জের হরিরামপুর থানাধীন বসন্তপুর বাগডাংনী দুর্গম চর এলাকার শরিফুল হঠাৎ করে সন্ন্যাসী বেশ ধারণ করেন। তার সন্ন্যাসী হওয়াতে ২ বছর আগে তার স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে যায়। এসময় মেয়েও নাটোরে দীঘাপতিয়া পূর্ব হাগুরিয়া গ্রামে নানার বাড়িতে চলে যায়। ঈদুল আজহার ৬ দিন আগে শরিফুল বিভিন্ন কৌশলে মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে আসে। বাড়িতে আনার পর সে মেয়েটির ওপরে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে। এক পর্যায়ে মেয়েকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে আটকে রেখে ধর্ষণ করে। বাড়িতে লোকজন এলে মেয়েটির সঙ্গে কাউকে দেখা বা কথা বলতে দেয়নি সে।

শেখ নাজমুল আলম বলেন, মেয়েটি কৌশলে তার নানার-নানির সঙ্গে যোগাযোগ করে। পরে মা ও নানি মেয়েকে উদ্ধার করেন। পরে মেয়ে বাদী হয়ে বাবার বিরুদ্ধে নাটোরের বড়াইগ্রাম থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করে। সিআইডি জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শরিফুল মেয়েকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে।

মামলার অভিযোগে মেয়েটি জানায়, তার ওপরে শারীরিক নির্যাতনের কথা তার দাদা-দাদিকে জানালে বিষয়টি সমাজের কাউকে বলতে নিষেধ করেন তারা। এক প্রশ্নের জবাবে শেখ নাজমুল আলম বলেন, ‘আমরা শরিফুল এর সঙ্গে কথা বলেছি। সে মানসিক অসুস্থ না। সুস্থ মস্তিষ্কে সে তার মেয়েকে এভাবে নির্যাতন করেছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.