ময়মনসিংহে মোবাইল চুরির অভিযোগে মধ্যযুগীয় নির্যাতন : গ্রেফতার-২

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি ঃঃ
মোবাইল চোর সন্দেহে মধ্যযুগীয় কায়দায় দড়ি দিয়ে বেধেঁ রেখে লাঠি দিয়ে পিটানো হয়েছে এক কিশোর ও এক শিশুকে।  বৃহষ্পতিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহের সদর উপজেলার চর ভবানিপুর এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। স্থানীয় প্রভাবশালী গোলাম মোস্তফার নেতৃত্বে চলে এই নির্যাতন।
জানাযায় গোলাম মোস্তফার মেয়ের মোবাইল চুরি হয় বুধবার, ৯ সেপ্টেম্বর। চোর সন্দেহে পরের দিন ভোরে ধরে আনা হয় পাশের গোবিন্দপুর গ্রামের দোলোয়ার হোসেনের ছেলে রাকিব (১২) ও একই গ্রামের জাহির মিয়ার ছেলে ফয়সাল (১৭) কে। তারপর তাদের বেধেঁ চলে নির্যাতন। নির্যাতনের সময় স্থানীয় অনেকে উপস্থিত থাকলেও প্রতিবাদ করেননি কেউ । পরে চুরির অভিযোগে কিশোর ফয়সালকে পুলিশের হাতে তুলে দেয় নির্যাতনকারীরা এবং রাকিবকে ছেড়ে দেয়া হয়।
পুলিশ বৃহস্পতিবার কিশোর ফয়সালকে চুরি মামলায় আদালতে প্রেরণ করে। ঘটনার দুইদিন পর কিশোরদের মারধরের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে শনিবার গভীর রাতে নির্যাতনকারী দুই জনকে আটক করেছে কোতোয়ালী থানা পুলিশ। আটককৃতরা হলেন চর ভবানীপুর এলাকার গোলাম মোস্তফা (৪৫) ও সফির উদ্দিনকে (৫০)।
কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফিরোজ তালুকদার বলেন, বৃহস্পতিবার ৯৯৯ এ কল করে জানানো হয় চোর আটক করা হয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে কিশোর ফয়সালকে থানায় এনে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হয়।
আটককৃতদের নামে নির্যাতনের অভিযোগে মামলা হয়েছে। তাদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.