করোনা মহামারীতে তিন ফুটবলারের পাশে রুহুল আমিন

সংবাদ জমিন, অনলাইন ডেস্ক ঃঃ

নারায়ণগঞ্জের রাজমিস্ত্রির সহকারী আরিফ হাওলাদার, ফরিদপুরের ঝাড়ুদার রিপন কুমার দাস এবং খুলনার ইজিবাইক চালক মো. হাসান আল মামুনের দায়িত্ব নিলেন বাংলাদেশ জেলা ও বিভাগীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব এবং বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাবস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন। অসচ্ছল-অসহায় তিন ফুটবলারের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে নগদ অর্থ প্রদানের পাশাপাশি ফুটবল সামগ্রী প্রদান করেছেন। তিন ফুটবলার যাতে ফুটবলে সম্পৃক্ত থাকতে পারে সেই ব্যবস্থা করে দিয়েছেন রুহুল আমিন। মাস পাঁচেক আগেও আরিফ, রিপন, মামুনরা ছিলেন ফুটবলার। বল পায়ে মাঠ দাপিয়ে বেড়াতেন। করোনা তাদের ভাগ্যে নতুন পরিচয় লিখে দিয়েছে। আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে কেউ রাজমিস্ত্রি, কেউ ঝাড়ুদার কেউবা ইজিবাইক চালক। এজন্য দায় ফুটবলারদের দেখছেন না তরফদার রুহুল আমিন। বাফুফের সঠিক পরিকল্পনার অভাবকেই দায় হিসেবে দেখছেন তৃণমূলের এ সংগঠক। তিন খেলোয়াড়কে আর্থিক সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ফুটবলাররা দেশের ভবিষ্যৎ। আজ যে তিন ফুটবলার ফুটবল ছেড়ে ভিন্ন পথ বেছে নিয়েছেন; তারা কিন্তু সবাই ভালো ভালো ক্লাবের হয়ে খেলেছেন। তাদের অবস্থা এমন হবে কেন! এর দায় বাফুফের। তার সঠিক পরিকল্পনার। তারা যদি নিয়মিত খেলা মাঠে রাখত, সুনির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে খেলা শেষ করে নতুন লীগ চালু করত তাহলে রিপন, আরিফদের ফুটবল ছেড়ে রাজমিস্ত্রি, দিন মজুরের কাজ করতে হতো না। ১২ বছরেও ফুটবলের অবকাঠামো দাড় করাতে পারেনি বাফুফে। আজ ফুটবলারদের এই অবস্থা আমি লজ্জিত। এ লজ্জা শুধু আপনার- আমার নয়। এই লজ্জা পুরো বাঙালি জাতির।

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published.